পাথারিয়া’য় মাঝরাতে হাওরে আটকা

24 Dec

রাত ৮-৯ টা মানে এখানে মাঝরাত, ডিঙ্গাপোতা হাওরে মুরাদপুর এলাকা (টাংগুয়ার হাওরে নিকটবর্তী হাওরাঞ্চল)। দোকান পাট বন্ধ, ঘর বাড়ি, রাস্তা ঘাট সহ চারিদিকে ঘুটঘুটে অন্ধকার। টিপটিপ বৃষ্টি, প্রচন্ড জোরে বাতাস আর পানি বিশাল বিশাল ঢেউ এর শব্দ। সিএনজির মামা পাথারিয়া থেকে ১৩ কিমি ভিতরে ঠিক এখানে রাত ৯টায় আমাদের ২ জনকে নামিয়ে দিয়ে পাথারিয়া চলে গেলো।

চারিদিকে বাতাসের শো শো শব্দ আর পানির ঢেউ চারিদিকে। সামনের রাস্তা পুরোপুরি ঢুবে গেছে আর বৃষ্টি তো আছেই। মোবাইলের লাইট দশবারের উপরে সিগন্যাল দিলাম যাতে কোন নৌকা দেখলে সেটা দিয়ে সামনের গ্রামে যেতে পারি। কিন্তু বৃথা চেষ্টা। একে তো আগাম বন্যার কারনে কেউ নৌকা এখনো ঠিক করতে পারেনি ভালো মতো তার উপর এই রাতের বেলা বৃষ্টি মাথায় কোন মাঝি নেই বললেই চলে। আমার রীতিমত ভয় ধরে গেলো, মনে হচ্ছিলো এই বুঝি বিরাটি পানির ঢেউ এসে বাকি রাস্তাও ঢুবিয়ে দিলো।

ধান আনা নেয়ার একটা ট্রাক রাস্তায় পরে ছিলো ভিতরে টিমটিমে একটা লাইট ও জ্বলছিল। দেখে মনে হবে ট্রাক চালু রেখে ড্রাইভার পালাইছে। ট্রাকের উপরে উঠে ছাতা মেলে ধরে আমি আর ফয়সাল হাওরি এক কোনায় প্রায় ঘন্টাখানেক বৃষ্টিতে ভিজলাম। হঠাৎ মনে পরলো সিনএজি ওয়ালার ফোন নাম্বার আছে আমার ডায়াল লিস্টে। সাথে সাথে তাকে কল দিয়ে বললাম আমার সব সম্পত্তি আপনার আমারে উদ্ধার করেন।

যাহোক ৪০ মিনিট পর ড্রাইভার আসলো যেনো দম বন্ধ হওয়া প্রাণে ফুরফুরে বাতাস পেলাম। পাথারিয়া বাজারে নেমে পেলাম আলীর বোর্ডিং। রাতের ভাড়া কতো জিজ্ঞেস করতেই বললো ১৫০ টাকা, আমরা ভাবলাম পার হেড ১৫০ টাকা পরে বললো না ২জনই ১৫০ টাকা। আকাশের চাঁদ হাতে পেলাম এমন অবস্থা। মালিক নিজেই একটা ছাপড়া সরাইখানায় বসিয়ে দিয়ে গেলো তারপর ২জনে গোগ্রাসে গিলে হাত পা ধুয়ে ফ্রেশ হয়ে আলীর বোর্ডিংয়ে আমাদের নির্ধারিত ঘরে ঢুকলাম। ঘর তো নয় বড় একটি রুমকে অনেকগুলো পার্টিশন দিয়ে এই বোর্ডিং। কোনমতে বিছানা আর ১ ফিট জায়গা বসে পা রাখার জন্য। পাথারিয়া বাজারে গেলে হয়তো এখনো পাওয়া যাবে বিখ্যাত আলির বোর্ডিং। কেন বিখ্যাত?

সকাল বেলা দেখি বিরাট আওয়াজে মুরগী ডাকছে!! মুরগীর ডাক এতো শার্প কেনো। নাহ কোনমতেই এভয়েড করে ঘুমানো সম্ভব হচ্ছে না। এ কি! আমাদের রুমে মুরগী কেনো!! মুরগীর বাচ্চা ও দেখি আছে খাটের তলে! সারারাত কি এদের সাথেই ছিলাম তবে!

লোকেশনঃঢাকা-> সুনামগঞ্জ->পাথারিয়া->মুরাদপুর
ছবি সংগ্রহঃ পরদিন সকালবেলা।


ভ্রমন সংক্রান্ত যেকোন প্রশ্ন / তথ্য / ট্যুর প্ল্যানের জন্য আমাদের ফেসবুক গ্রুপ ছুটি ট্রাভেল গ্রুপে জয়েন করতে পারেন। ছুটির সব মেম্বার খুবই হেল্পফুল, সুন্দর একটি ট্যুরের জন্য সকল হেল্প এখানে পাবেন। এছাড়া আমি ছুটির সাথে প্রতিমাসেই ট্যুর দিয়ে থাকি চাইলে ছুটির ইভেন্টেও জয়েন করতে পারেন। ছুটি একটি ফ্যামিলি ফ্রেন্ডলি ট্রাভেল গ্রুপ তাই নিশ্চিন্তে যেতে পারেন দেশের যেকোন প্রান্তে। 

ফেসবুক গ্রুপ – ছুটি ট্রাভেল গ্রুপ (https://fb.com/groups/ChutiTravelGroup)

মন্তব্যসমূহ / আলোচনা