ভ্রমন কাহিনী

ঢাকার পাশে ধলেশ্বরীর সবুজ পানির রাজ্যে

ধলেশ্বরী নদী বাংলাদেশের উত্তর-কেন্দ্রীয় অঞ্চলের টাঙ্গাইল জেলা, মানিকগঞ্জ জেলা, ঢাকা জেলা নারায়ণগঞ্জ জেলা এবং মুন্সীগঞ্জ জেলার একটি নদী। নদীটির দৈর্ঘ্য ২৯২ কিলোমিটার এবং এটি যমুনা নদীর একটি শাখা। টাঙ্গাইল জেলার উত্তর পশ্চিম প্রান্তে যমুনা নদী হতে ধলেশ্বরীর সূচনা। এটি এর পর দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায় – উত্তরের অংশটি ধলেশ্বরী আর দক্ষিণের অংশটি কালীগঙ্গা নামে প্রবাহিত হয়। এই দুইটি শাখা নদী মানিকগঞ্জ জেলার কাছে মিলিত হয়, এবং সম্মিলিত এই ধারাটি ধলেশ্বরী নামে প্রবাহিত হয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলার কাছে শীতলক্ষা নদীর সাথে মিলিত হয়ে পরবর্তীকালে মেঘনা নদীতে পতিত হয়।

সহজে কিভাবে ঘুরতে যেতে পারেন এবং আমরা যেভাবে গিয়েছিলাম সেটাই বলছি আপনাদের।

সরাসরি মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড চলে আসবেন তারপর ১০ টাকা রিকশাভাড়া দিয়ে আসবেন আটি বাজার বাসস্ট্যান্ডে এখানে এসে যেকোন সিএনজিকে বললেই হবে সৈয়দপুর যাবো (রামেরকান্দার পরে সৈয়দপুর)। ৫০ টাকা নিবে জনপ্রতি। আপনাকে সিএনজি রাস্তার মোড়ে নামিয়ে দিবে। ১ মিনিট হাটলেই নৌকার ঘাট দেখতে পাবেন যে কাউকে বললেই দেখিয়ে দিবে। এখানে এসে একটি নৌকা ঠিক করবেন। একা যাবেন না, কমপক্ষে ৫-১০ জন নিয়ে যাবেন। নৌকা ভাড়া তুলনামূলক কম। মোটামুটি সারাদিনের জন্য ১০০০-১৫০০ টাকায় জোগাড় করে ফেলতে পারবেন। জনপ্রতি খরচ ধরলাম ১৫০ টাকা।

মাঝিকে বলতে পারেন পারাগ্রামের দিকে নৌকা ছাড়তে। পথের মধ্যে অনেক সুন্দর সুন্দর জায়গা পাবেন সেখানে থামাতে পারেন এবং গোসল করতে পারেন। পারাগ্রামের পরেও আরো সুন্দর সুন্দর জায়গায় আছে সেদিক থেকেও ঘুরে আসতে পারেন। দুপুরে যেকোন একটা বাজারে থামিয়ে দুপুরের খাবার খেয়ে নিবেন। সর্বোচ্চ ১০০ টাকা লাগবে। গ্রামের মাটির চুলায় রান্না করা হোটেল খুজে পেলে তো খুবই ভালো। খাবার খেয়ে অনেক স্বাদ পাবেন। দুপুরের পরে আবার সৈয়দপুর এর দিকে রওনা দিবেন। অবশ্যই সন্ধ্যা পার করবেন নৌকার মধ্যে। যদি পূণিমা থাকে তাহলে বিশাল এক চাঁদ উপভোগ করে আসতে পারবেন আর বৃষ্টি হলে তো ষোল কলা পূর্ণ। সৈয়দপুর থেকে সিএনজি করে আবার মোহাম্মদপুর বাসস্ট্যান্ড চলে আসবেন ৫০ টাকা লাগবে।

সর্বমোট খরচঃ ১০+৫০+১৫০+১০০+৫০=৩৬০ টাকা।

গ্রুপ ট্যুরে যেতে চাইলে? 

ছুটি ট্রাভেলস গ্রুপ সময় এবং সিজন অনুযায়ী গ্রুপ ট্যুরের আয়োজন করে থাকে। সাজেক, কক্সবাজার, সেন্টমার্টিন, হাওর, রাঙ্গামাটি, ঝর্ণা ট্যুর, বিভিন্ন ধরনের ডে ট্যুর, রিসোর্ট ট্যুর এবং আরো অনেক রকমের ইভেন্ট হয় সারা মাস এবং সারা বছর। আমাদের গ্রুপে জয়েন করলে আমাদের সব আপডেট এবং ইভেন্ট লিস্ট দেখতে পারবেন। যেহেতু গ্রুপ ট্যুর হয় তাই খরচ হবে সবচেয়ে কম এবং আপনাকে টিকেট / খাবার / লোকেশন / স্পট / ট্রান্সপোর্টেশন ইত্যাদি কোন কিছু নিয়েই টেনশন করতে হবে না। আমাদের আগের সব ট্যুরের এলবাম দেখতে চাইলে ভিজিট করতে পারেন আমাদের ছুটি ট্রাভেলস গ্রুপের ফেসবুক পেজ

মন্তব্য করতে ভুলবেন না
TAGS
মেহেদী হাসান
ঢাকা, বাংলাদেশ

হ্যা, এটাই আমি মেহেদী! এতক্ষণে বুঝে যাওয়ার কথা আমি একজন শখের ট্রাভেলার। পেশায় সিস্টেম ইঞ্জিনিয়ার। আমার জীবনের ষোল আনাই শখ। যেমন, সব ধরনের শখের মতো এই ব্লগটিও শখের। এটি আমার যাযাবর জীবনের ডায়েরী!