কক্সবাজারের বিখ্যাত খাবার হোটেল সমূহ

সবসময় ই দেখি একধরনের পোস্ট “কক্সবাজার যাচ্ছি, কি খাবো?” ফুড গ্রুপ / ফেসবুক / ট্রাভেল গ্রুপ সব জায়গায় ই পোস্ট কেউ দেখেন নাই এমন বোধহয় কেউ নাই। তাই ভাবলাম নিজের ৫/৭ বারের অভিজ্ঞতায় আর অনলাইন রিভিউ যাচাই করে একটা লেখা লিখে ফেলি। ধীরে ধীরে আপডেট করে সংযোজন বিয়োজন করে এই লেখাটি আরো তথ্যসমৃদ্ধ হবে আশা করি।

খাওয়া মূলত বেশ কয়েক প্রকার। বেসিক খাবার, লাঞ্চ-ডিনার, আবার আছে ক্যান্ডেল লাইট ডিনার, রুফ-টপ ডিনার, বিবিকিউ, সি ফুড ইত্যাদি নানা রকমের খাবার। আবার অন্যদিক থেকে বাংলা খাবার, থাই/চাইনিজ ইত্যাদি খাবার। কক্সবাজার গেলে ফিশ আইটেম ট্রাই করাই বুদ্ধিমানের কাজ কারন ঢাকায় আমরা গরু বা, চিকেন আইটেম বাড়িতে/রেস্টুরেন্টে রেগুলার খেয়েই থাকি। তবে কক্সবাজার গেলে সিফুড খাওয়া অন্যরকম এক অভিজ্ঞতা।

কক্সাজারে খাওয়ার মত অনেকগুলো রেস্টুরেন্ট আছে। বাজেট রেস্টুরেন্টের মধ্যে পৌষির নামই সবার আগে আসে। এধরণের বেশ কিছু রেস্টুরেন্ট আছে, খাবারের মান মোটামুটি একই। যেমনঃ রোদেলা, নিরিবিলি, রান্নাঘর, ধানসিড়ি ইত্যাদি। দামও কম-বেশি কাছাকাছি। লাঞ্চ – ডিনার, সি ফুড, বিবিকিউ, রুফটপ, বাফেট, বিরিয়ানি সব আইটেমের হোটেল ই নিচে উল্লেখিত আছে।

 

সকালের নাস্তার জন্যঃ

নিরবিলি রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ
বিখ্যাত খাবারঃ বিফ পায়া।

 

বাংলা খাবার (লাঞ্চ / ডিনার) এর জন্যঃ 

নিউ পৌষি (পুরাতনটা নয়)
লোকেশনঃ যেকোন রিক্সাওয়ালাকে / অটোকে বললেই নিয়ে যাবে।
স্পেশাল ফুডঃ ভর্তা প্ল্যাটার, লইট্টা ফ্রাই, বিফ কালা ভূনা, পুডিং, কাস্টার্ড, ফালুদা।

রান্নাঘর
লোকেশনঃ সায়ামন রোড, বাহারছড়া।
স্পেশাল ফুডঃ ভর্তা প্ল্যাটার সহ বাংলা ফুড।

কুটুমবাড়ি
লোকেশনঃ কলাতলি।
স্পেশাল ফুডঃ ভর্তা প্ল্যাটার সহ বাংলা ফুড।

ওয়েস্টার্ন প্লাজা
লোকেশনঃ হোটেল সি প্যালেস
স্পেশাল ফুডঃ লইট্টা ফ্রাই / ভুনা, মাটন ভূনা।

 

বিরিয়ানি ফুডঃ

হান্ডি রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ লাবনি পয়েন্ট বিচ রোড।
স্পেশাল ফুডঃ হায়দ্রাবাদি বিরিয়ানি।

কয়লা রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ সিগাল হোটেলের এদিকে।
স্পেশাল ফুডঃ আচারি চিকেন আইটেম।

 

বুফে লাঞ্চ / ডিনারঃ

হোটেল কক্সটুডে রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ সি-ইন পয়েন্ট রোডে।
স্পেশাল ফুডঃ যেকোন বুফেতেই কক্সটুডে বেস্ট।

হোটেল লং বিচ রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ লং বিচ হোটেল।
স্পেশাল ফুডঃ বুফে ডিনার।

 

সান-সেট ক্যাফেঃ 

মারমেইড ক্যাফে
লোকেশনঃ মেরিন ড্রাইভ রোড।
স্পেশাল ফুডঃ অর্গানিক রাইস।

সি ল্যাম্প বিচ ক্যাফে
লোকেশনঃ কলাতলি রোড, কক্সবাজার।
স্পেশাল ফুডঃ ফিশ বারবিকিউ, ক্যান্ডেল লাইট ডিনার।

ম্যাগ ডেরিন বিচ ক্যাফে
লোকেশনঃ নিস্বর্গ হোটেলের পাশে (দারুন সানসেট দেখা যায়)।
স্পেশাল ফুডঃ সি-ফুড, চাইনিজ সবই পাওয়া যায়।

ডিভাইন ইকো রিসোর্ট
লোকেশনঃ মেরিন ড্রাইভ রোড।
স্পেশাল ফুডঃ ক্যান্ডেল লাইট ডিনার এর জন্য বেস্ট।

 

সি-ফুড রেস্টুরেন্টঃ 

প্রসাদ প্যারাডাইস রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ সিইএন পয়েন্ট এর এদিকে।
স্পেশাল ফুডঃ কোরাল, পমফ্রেট, রেড স্নেপার বিবিকিউ, কিন ফিশ বিবিকিউ ইত্যাদি।

লাইভ ফিশ রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ শৈবাল হোটেলের পাশে।
স্পেশাল ফুডঃ ফিশ বারবিকিউ।

তরঙ্গ রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ প্রসাদ প্যারাডাইস হোটেলের পাশে।
স্পেশাল ফুডঃ কোরাল মাছের কাবাব, বসনিয়ান রুটি। এছাড়া আরো অনেক আইটেম আছে।

রুফ-টপ রেস্টুরেন্টঃ 

স্কাইরুফ রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ ওশান প্যারাডাইস হোটেল
স্পেশাল ফুডঃ অজানা।

 

সল্প মূল্যে ভালো পরিবেশের হোটেলঃ

শালিক রেস্টুরেন্ট
লোকেশনঃ কলাতলি থেকে হিমছড়ি যেতে পরবে।
স্পেশাল ফুডঃ মোটামুটি দামে ভালো পরিবেশে লাঞ্চ / ডিনার করতে পারবেন।

হোটেল জামান
লোকেশনঃ ওশান প্যারাডাইস হোটেলের উল্টাপাশে।
স্পেশাল ফুডঃ মোটামুটি দামে ভালো পরিবেশে লাঞ্চ / ডিনার করতে পারবেন।

ভ্রমন সংক্রান্ত যেকোন প্রশ্ন / ইনফরমেশন লাগলে আমাকে ফেসবুকে নক করতে পারেন। অথবা, আমার ফেসবুক ট্রাভেল গ্রুপ “ছুটি ট্রাভেল গ্রুপ” এ পোস্ট দিতে পারেন। যতদ্রুত সম্ভব হেল্প করার চেষ্টা করবো।

আপনার মতামত শেয়ার করুন