বিক্ষিপ্ততা

বন্ধুটি বলে উঠলো, বিয়া করলে তো তুই শেষ। তোরে পাওয়া মুশকিল হইয়া যাইবো। আমিও টাশকি। তাই তো ! কিন্তু ব্যাপারটা একটু বিশ্লেষন করে দেখলাম, আসলে সমস্যা কি ধরনের হতে পারে মুশকিল হওয়ার মতো? ভেবে ভেবে খুব বেশি কিছু পেলাম না, ব্যস্ততা জিনিসটা ছাড়া। কাজ-কর্মে ব্যস্ত, এই তো? আর তেমন কি এমন কারন থাকবে?

একটু পুরানো জিনিস ভেবে দেখলাম। যে মানুষের সাথে তীব্র পরিমান ক্লান্ত থাকার পরেও ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলা যায়, ঘন্টার পর ঘন্টা হাটা যায়। ছোট ছোট আনন্দ দেয়ার জন্য কতো কিছুই না করা যায়, সামান্য কিছু সময়ের বিবর্তনে সেটার এতো পরিবর্তন কিভাবে সম্ভব হয়? শুধুমাত্র ব্যস্ততার জন্য এতকিছু হয়ে যাবে? পরিচিত একটা লাইন বলতে কখনোই চাই না তবুও মাঝে মাঝে বলতে হয়, No one is busy in this world, its all about priority.

কিছু মানুষের সাথে কথা বলতে তো কখনোই সময়জ্ঞান করতে হয়নি,
কিছু মানুষের সাথে আড্ডা দিতে তো কখনো শিডিউল দেখতে হয়নি,
কিছু মানুষ কথা বলতে চাইলে বেলালুম ভুলে যেতাম ব্যস্ততার সব স্তরগুলি
এই কিছু মানুষ গুলোই তো সবকিছু, কতো সুখ-বেদনার, কালক্ষণের রাজসাক্ষী,

এই মানুষগুলোকে ছাড়া কেমনে আমি শেষ হই?
আমি তো ছিলাম, এই তো এখনো আছি চেয়ে দেখ ,
আমি থাকবো … এবং
বেহায়ার মতো থেকেই যাবো … : )

Leave a Reply