Freelancing

জনৈক ফ্রিল্যান্সের সহিত সাক্ষাত এবং তার কিছু টিপস

ঘুরতে ঘুরতে একদিন একজন সফল ফ্রিল্যান্সার এর সহিত দেখা হয়ে গেল। তারপর কি আর তারে ছাড়া যায় !!  কিছু টিপস পেলাম তার কাছ থেকে। তাই ভাবলাম একটু শেয়ার করি সবার সাথে।

১। প্রথম যখন বিড করবেন ডলার এর দিকে তাকাবেন না। তাইলে আর জব পেতে হবে না। কারন আপনার থেকে অনেক এক্সপার্ট এবং ২০০-৩০০ আওয়ার জব করা কন্ট্রাক্টরা ও ওই জব এ বিড করবে। তাই রেট লো রাখুন।

২। আপনি কিসে আগ্রহী সেটা নির্ধারন করুন। ডিজাইনিং/ ওয়েব ডেভলাপ/ এস ই ও/ প্রোগ্রামিং/ অন্য কিছু ?? যেটাই করেন যেকোন ১ টা / সর্বোচ্চ ২ টা বেছে নেন। কোন কাজে এক্সপার্ট হলে ওডেস্ক এ /অন্যান্য অনলাইন মার্কেটপ্লেস এ ও আপনি ভালো ভালো কাজ পাবেন।

৩। কভার লেটার কারো কাছ থেকে কপি করবেন না। দরকার হলে ২ লাইনের কভার লেটার লেখুন। প্রয়োজনে লেখুন “Im Weak in English , but efficient in SEO/WD/others”.নিজের অক্ষমতা স্বীকার করলে মান ইজ্জত চলে যাবে না।বরং আপনার ব্যাক্তিত্ত প্রকাশ পাবে।

৪। অবশ্যই নিয়মিত বিড করবেন। আজ করলেন আবার এক সপ্তাহ পর করলেন। সেটা কখনো করবেন না।

৫। প্রোফাইল স্টান্ডার্ড রাখুন। ১০০% কমপ্লিট না করলে ও চলবে। পোর্টফোলি ও ছাড়া ১০০% কমপ্লিট হবেনা। যদি পোর্টফোলিও থাকে তো সেটাও এড করে দিন  প্রোফাইলে।

৬। চেষ্টা করুন প্রথম ২/৩ টা কাজ ভালো ভাবে করতে। প্রথম কাজ গুলোর গুরুত্ত অনেক। আপনার ফিডব্যাক ভালো হলে ভবিষ্যতে অনেক কাজ পাবেন।

৭। অবশ্যই যেই কাজ টা জানেন না সেটা তে ভুলে ও বিড করবেন না। যদি দেখেন যে ৮০% জব ই আপনি পারেন না আপনার ফিল্ড এর। তাহলে আরো শিখুন প্রাক্টিস করুন। ২/১ মাস পর আবার বিড করা শুরু করুন।আশা করি ৮০% থেকে কমে ৪০% হয়ে যাবে যদি মনোযোগ দিয়ে সব কিছু শিখতে পারেন।

৮। কখনো চিন্তা করবেন না শর্টকাট মারতে। “সাফল্যের কোন শর্টকাট নাই-  রিয়া আপু ”

৯। আর জানি কি কি কইলো ??? ভুইল্যা গেচি। আইচ্চা মনে পরলে আবার লিখুম। নো টেনশন। আইজ থাক।

You may also like
Article-writing-typing
আয়ের পথ হিসেবে "Article Writing"
আউটসোর্সিং ও বর্তমান প্রেক্ষাপট
2 Comments

Leave a Reply