Category : Freelancing

Freelancing

আয়ের পথ হিসেবে "Article Writing"

Article-writing-typing

অনেক দিন পর লেখতে বসলাম। আজ ননটেকিদের জন্য নতুনভাবে একটি পুরাতন বিষয় নিয়ে হাজির হলাম।

যারা টেকনিক্যাল বিষয় নিয়ে পড়াশোনা করে না তাদের জন্য আজ আর্টিকেল রাইটিং নিয়ে কিছু কথা বলবো। আপনি ওয়েব ডিজাইন/প্রোগ্রামিং/ গ্রাফিক্স এর কাজ জানেন না। এগুলা শিখা ও অনেক সময় এর ব্যাপার। আর এফোর্ট এর ব্যাপার। আপনি যদি আপনার Track থেকে তার পাশাপাশি কম প্রচেষ্টা/সময় দিয়ে কিছু করতে চান তাহলে আর্টিকেল রাইটিং আপনার জন্য একটি পারফেক্ট পার্টটাইম জব হতে পারে যদি ইংরেজি জ্ঞান মোটামুটি ভালো থাকে। তারপর চর্চা করে করে জ্ঞানটাকে যত সমৃদ্ধ করতে পারেন তত ভালো।

সবচেয়ে ভাল উপায় হয় যদি আপনি কিওয়ার্ড রিসার্চ নিয়ে পড়াশোনা করে একটি / দুটি ভালো কিওয়ার্ড নিয়ে মানসম্পন্ন একটি ইংরেজি ব্লগ চালু করতে পারেন। এখানে নিয়মিত লেখার মাধ্যেমে আপনার বেশ ভালো চর্চা হবে পাশাপাশি একটি নির্দিষ্ট সময় পর আপনি গুগুল এডসেন্স/ এফিলিয়েট ইউজ করে ব্লগ থাকে ভাল মানের আয় করতে পারেন ইচ্ছা করলেই। এসইও নিয়ে কিছু পড়াশোনা করতে পারেন। তাতে ব্লগের যেমন এসইও নিজে নিজেই করতে পারবেন পাশাপাশি ফ্রিল্যান্স রাইটিং এর আর্টিকেল গুলো ও অপ্টিমাইজ করতে পারবেন। এতে একঢিলে দুপাখি মারা হবে।

ভালো একটি ব্লগ শুধু আপনাকে এডসেন্স/ এফিলিয়েট হতে আয় করতেই সহযোগিতা করবে না আপনাকে অনেক অনেক ভালো ভালো কাজ ও পাইয়ে দিবে। এক্ষেত্রে আপনি যেমন ওডেস্ক / ফ্রিল্যান্সার এ ফ্রিল্যান্স রাইটার এর কাজ করতে পারবেন তেমনি ব্লগ থেকে ও রাইটিং এর কাজ পেলে সেটাও করতে পারবেন আর এডসেন্স / এফিলিয়েশন তো আছে ই।

শুরু করতে যা লাগবেঃ 

১, প্রথমে পড়াশোনা করুন/ পরিচিত কারো সাহায্য নিন আর্টিকেল রাইটিং এবং এসইও এর ব্যাপারে। 

২, একটি/দুটি কিওয়ার্ড সিলেক্ট করুন। 

৩, একটি .com ডোমেইন এবং একটি মিনিমাম মানের হোস্টিং প্লান নিয়ে ব্লগিং শুরু করুন। 

৪, নিয়মিত লেখুন এবং ভালো মানের লেখা দিয়ে শুরু করুন। 

৫, ওডেস্ক এ একটি একাউন্ট করে প্রোফাইল টা সুন্দর ভাবে সজ্জিত করুন এবং ৪/৫ টা টেস্ট দিন। 

৬, নিয়মিত বিড করুন কাজ পাবেন। আর কয়েকটা কমপ্লিট হয়ে গেলে আপনি নিয়মিত কাজ পাবেন। 

৭, ৩/৪ মাস ব্লগিং করার পর এডসেন্স এ এপ্লাই করতে পারেন একাউন্ট এর জন্য/ এমাজন এফিলিয়েট অথবা অন্য এফিলিয়েট একাউন্ট করতে পারেন এবং ব্যবহার ও করতে পারেন। 

আমি খুব সহজ ভাবেই বলে দিলাম কিন্তু করার সময় একটু কঠিন লাগবেই। চেষ্টা করলে খুব দ্রুত ই সব কিছু সম্ভব করে তোলা যায়। 

প্রফেশনাল রাইটার এর সাথে কনসালটেন্সি / এসইও বিষয়ক সহযোগিতা / ব্লগ সেটাপ/ ডোমেইন/ হোস্টিং/ ওডেস্ক বিষয় সহযোগিতা যে কোন ব্যাপারে সহযোগিতার জন্য মেইলে যোগাযোগ / মন্তব্য করতে পারেন। সবাইকে ধন্যবাদ।

Read More
Freelancing

Why you should hire me for On Page SEO?

Search Engine Optimization this three words are the most top keyword in present online marketplace. There are so many consultant in oDesk/ Freelancer and other market places. I just astonished to see that a link builder tried to show him/her as a SEO consultant… !!

I want to describe something about SEO. This is not a thing of a week or a month. For some on page optimization it will may 1 month task but i want to tell you that this is a long process. We consultants have to do many things for good eyes @Google/Yahoo/Bing. Two months ago i worked as SEO manager of Skin Tricks. They tried to get rank @Google. They wanted to give me high payment for this things. I just told that, you can give me 10K but Google is believe in its algorithm. I told No one can give you rank in one week and at last they understand me.

Read More
Freelancing

ফ্রিল্যান্সিং করেন ; কিন্তু তাই বলে কি সবার কাজ করবেন ? আসুন জেনে নিই –

Top_10_Money_Tips_Slide05

গতকাল একটা পোস্ট লেখলাম ; যা সারা পেলাম আজ আবার লেখার জন্য হাত নিশপিশ করতেছে, তাই ঘুম থেকে উঠেই বসে পড়লাম। তাহের ভাই কে ধন্যবাদ, তার উৎসাহ না পেলে আজ আর আমার এটা লেখা হতো না।

আসুন জেনে নিই ওডেস্কে/ফ্রিল্যান্সার এ কাদের কাজ করার আগে একটু ভেবে করবেন। লিস্টটা খুবই ছোট। নং ওয়ানে আছে আমাদের প্রিয় বন্ধু ভারত। ওদের ক্ষেত্রে কি কি সমস্যা বিস্তারিত বলি। তারা বলবে টাকা নিয়ে ভাববেন না। কাজ করার শেষে আপনাকে বোনাস ও দিবো। প্রথমে যদি ১০০ ডলার এ কাজ ফিক্স করেন। পরে আরো কয়েকটা টাস্ক দিবে। মোটামুটি ভাবে ২০০ ডলার এর কাজ করাই নিবে। কাজ মোটামুটি শেষের দিকে হলে সে হাওয়া হয়ে যাবে আপনাকে কোন পেমেন্ট না দিয়েই। আমি যা দেখেছি তাদের ভালো ভালো কিছু কোম্পানী ও এমন করে যারা তাদের রাজ্য মোটামুটি বিখ্যাত। প্রথম প্রথম যারা ফ্রিল্যান্সিং করেন তাদের টাকা মাইর যায় বেশি। সেজন্য অনেকে হতাশায় ডুবে পরেন। আপনাদের জন্য আমার পরামর্শ কার কাজ করছেন আগে যাচাই করে নিন। কোন সন্দেহ থাকলে আপ-ফ্রন্ট নিন।না হয় বলে দিন আমি আপনার কাজ করবো না। কাজের জন্য একেবারে মরিয়া হয়ে উঠবেন না। টাকা ইনকাম আপনি পরেও করতে

Read More
Freelancing

ফ্রিল্যান্স ক্লাইন্ট হ্যান্ডলিং এর গুরুত্ত এবং কিছু কথা

ফ্রিল্যান্স কাজ করতে গেলে বেশিরভাগ মানুষের ই যে সমস্যা দেখা যায় তা হলো তাদের প্রোফাইল নিয়ে প্রচন্ড মাথা ব্যাথা, প্রোফাইল ১০০% না করা পর্যন্ত কেউ বিড ও করে না এমন মানুষ ও আছে। আর কাজ নিয়ে তো ৯৫ ভাগ মানুষ সমস্যায় থাকেই। কিন্তু একটা গুরুত্তপূর্ন জিনিস যেটা নিয়ে কাউকে কখনো প্রশ্ন করতে দেখি ও নাই শুনি ও নাই, কোথাও আলোচনা ও করতে দেখি নাই সেটা হলো ক্লাইট হ্যান্ডলিং। যদি ও বেশির ভাগই কন্ট্রাকটর রা ই বিগিনিং লেভেলে তাই তারা আগে কাজ পাওয়া নিয়ে ই ব্যস্ত। পরবর্তিতে হয়তো এটা নিয়ে তারা ভাবতেন/প্রশ্ন জাগতো। যাই হোক মূল আলোচনায় আসি,

Read More
Freelancing

আউটসোর্সিং ও বর্তমান প্রেক্ষাপট

আউটসোর্সিং কি–এ প্রশ্ন বাংলাদেশের একজন সাধারণ মানুষকে জিজ্ঞেস করা হলে সে বলবে ‘ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিনা পরিশ্রমে টাকা উপার্যনের একটি উপায়’, এ উত্তরটি আসলে একটি ভ্রান্ত ধারনা থেকে সৃষ্ট। আবার অনেকে এই ‘আউটসোর্সিং’ শব্দটির সম্পর্কে কোন ধারনাই রাখেন না। কিন্তু আসলে এই আউটসোর্সিং টা কি? একটা উদাহরনের সাহায্যে বোঝানোর চেষ্টা করছি।

বাংলাদেশে প্রচুর গার্মেন্ট ফ্যাক্টরি রয়েছে। এর অধিকাংশ ফ্যাক্টরিরই কাজ হচ্ছে বিদেশের বিভিন্ন কোম্পানির জন্য চাহিদা অনুযায়ী পোশাক তৈরি করা এবং রপ্তানি করা। আর বিদেশি কোম্পানিগুলো বাংলাদেশের কারখানাকে কাজ দিচ্ছে বাংলাদেশের শ্রমিকের নিম্ন মজুরির জন্য যা তাদের পণ্যের উৎপাদন খরচ অনেক

Read More
Freelancing

জনৈক ফ্রিল্যান্সের সহিত সাক্ষাত এবং তার কিছু টিপস

ঘুরতে ঘুরতে একদিন একজন সফল ফ্রিল্যান্সার এর সহিত দেখা হয়ে গেল। তারপর কি আর তারে ছাড়া যায় !!  কিছু টিপস পেলাম তার কাছ থেকে। তাই ভাবলাম একটু শেয়ার করি সবার সাথে।

১। প্রথম যখন বিড করবেন ডলার এর দিকে তাকাবেন না। তাইলে আর জব পেতে হবে না। কারন আপনার থেকে অনেক এক্সপার্ট এবং ২০০-৩০০ আওয়ার জব করা কন্ট্রাক্টরা ও ওই জব এ বিড করবে। তাই রেট লো রাখুন।

২। আপনি কিসে আগ্রহী সেটা নির্ধারন করুন। ডিজাইনিং/ ওয়েব ডেভলাপ/ এস ই ও/ প্রোগ্রামিং/ অন্য কিছু ?? যেটাই করেন যেকোন ১ টা / সর্বোচ্চ ২ টা বেছে নেন। কোন কাজে এক্সপার্ট হলে ওডেস্ক এ /অন্যান্য অনলাইন মার্কেটপ্লেস এ ও আপনি ভালো ভালো কাজ পাবেন।

৩। কভার লেটার কারো কাছ থেকে কপি করবেন না। দরকার হলে ২ লাইনের কভার লেটার লেখুন। প্রয়োজনে লেখুন “Im Weak in English , but efficient in SEO/WD/others”.নিজের অক্ষমতা স্বীকার করলে মান ইজ্জত চলে যাবে না।বরং আপনার ব্যাক্তিত্ত প্রকাশ পাবে।

৪। অবশ্যই নিয়মিত বিড করবেন। আজ করলেন আবার এক সপ্তাহ পর করলেন। সেটা কখনো করবেন না।

৫। প্রোফাইল স্টান্ডার্ড রাখুন। ১০০% কমপ্লিট না করলে ও চলবে। পোর্টফোলি ও ছাড়া ১০০% কমপ্লিট হবেনা। যদি পোর্টফোলিও থাকে তো সেটাও এড করে দিন  প্রোফাইলে।

৬। চেষ্টা করুন প্রথম ২/৩ টা কাজ ভালো ভাবে করতে। প্রথম কাজ গুলোর গুরুত্ত অনেক। আপনার ফিডব্যাক ভালো হলে ভবিষ্যতে অনেক কাজ পাবেন।

৭। অবশ্যই যেই কাজ টা জানেন না সেটা তে ভুলে ও বিড করবেন না। যদি দেখেন যে ৮০% জব ই আপনি পারেন না আপনার ফিল্ড এর। তাহলে আরো শিখুন প্রাক্টিস করুন। ২/১ মাস পর আবার বিড করা শুরু করুন।আশা করি ৮০% থেকে কমে ৪০% হয়ে যাবে যদি মনোযোগ দিয়ে সব কিছু শিখতে পারেন।

৮। কখনো চিন্তা করবেন না শর্টকাট মারতে। “সাফল্যের কোন শর্টকাট নাই-  রিয়া আপু ”

৯। আর জানি কি কি কইলো ??? ভুইল্যা গেচি। আইচ্চা মনে পরলে আবার লিখুম। নো টেনশন। আইজ থাক।

Read More